মঙ্গল. অক্টো ২২, ২০১৯

এবার ফাঁসছেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি!

মাদক-সন্ত্রাস-চাঁদাবাজ ও ক্যাসিনোবিরোধী সরকারের শুদ্ধি অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকেই আলোচনায় ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইসমাইল হোসেন সম্রাট। অবশেষে রোববার (৬ অক্টোবর) কুমিল্লা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

সম্রাট গ্রেপ্তার হওয়ার পর আলোচনায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্যা আবু কায়ছার। এই নেতার বিরুদ্ধেও অনেক অভিযোগ রয়েছে।

সোমবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘অভিযোগের সত্যতা প্রমাণ হলে কেউ রেহাই পাবে না। ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননও তো একটা ক্লাবের মালিক, প্রমাণ তো করতে হবে তিনি ক্যাসিনো ব্যবসা করেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা যা বলছি তা মুখে বলছি না, কালপ্রিটদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কোনো দ্বিধা-সংকোচ নেই।’

এদিকে একাধিক গোয়েন্দা সংস্থার সূত্রে জানা গেছে, যখন শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়, তখন দেশের বাইরে ছিলেন মোল্লা কাওসার। তবে এখন তিনি দেশেই আছেন। তিনি গোয়েন্দাদের নজরদারিতে আছেন। তার ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।

গোয়েন্দা সংস্থা একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে যে, মোল্লা কাওসার নজরদারিতে আছে। যুবলীগের পরেই স্বেচ্ছাসেবক লীগে ‘ক্র্যাশ প্রোগ্রাম’ শুরু হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *